• রোববার , ৫ এপ্রিল ২০২০

শাওমি মি এ৩ ফোনটিকে কিনা কি ঠিক হবে?

স্টাফ রিপোর্টার:
প্রকাশিত: ৪:০৬ এএম, ২৮ নভেম্বর ১৯ , বৃহস্পতিবার

নিউজটি পড়া হয়েছে ৪ বার

হ্যালো বন্ধুরা কেমন আছেন আপনারা? আশা করি সবাই আমার মত ভালই আছেন। এ ব্লগে আমি আজকে একটি মোবাইল রিভিউ নিয়ে আর্টিকেল লিখতেছি। আমরা অনেকেই অনেক ধরনের মোবাইল কিনে থাকি। কিন্তু মোবাইল গুলো কেনার আগে যে ফিচারগুলো আমাদের জানা দরকার। তা হয়তো আমরা না জেনে হুট করে মোবাইল ফোন কিনে বসে থাকি। এর জন্য আমাদের মোবাইলের টাকা বাজেট অনুযায়ী আমরা মনের মত ফোন পাইনা। আজকে আমি আলোচনা করব শাওমি এর একটি স্মার্টফোন নিয়ে। সেটি হচ্ছে শাওমি মি এ৩ । এ মোবাইলের আজকের ফিচার গুলো নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করব। তো সবাই শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত আমার এই আর্টিকেলটি পড়তে থাকুন। এবং এই মোবাইল সম্পর্কে আরো বিস্তারিত জানতে। ভিজিট করতে পারেন শাওমি এর অফিশিয়াল ওয়েবসাইট। অথবা আমার কাছ থেকে জানতে চাইলে আমার আর্টিকেল এর নিচে কমেন্ট করুন।

আমি আগেই বলেছি সবই সবকিছুর ক্ষেত্রে একটু বেশি বেশি দিয়ে থাকে। আজকের আমার হৃদয়ের স্মার্টফোন শাওমি মি a3 এর স্মার্টফোনে পাবেন। প্রসেসর হিসেবে স্নাপড্রাগণ 665। যা গেমিং এর জন্য অনেক সেরা একটি প্রসেসর হিসেবে আমি মনে করি। তাছাড়া এই স্মার্টফোনে থাকছে 4000mh এর ব্যাটারি। যা আট থেকে নয় ঘণ্টা আপনি ফুল ব্যাকআপে থাকবেন। এবং এই ফোনে 18 ওয়াট চার্জিং সাপোর্ট করবে। এবং এই ফোনে ফার্স্ট চার্জিং হিসেবে ব্যবহার করা হয়েছে ৩ । আশাকরি এর চার্জিং ইস্যু নিয়ে আপনাদের কোন মন্তব্য থাকবে না। এবং সেইসাথে ব্যাটারি ব্যাকআপ নিইয়েও।

এই ফুলের আরো আকৃষ্ট কিছু ফিচার রয়েছে যেমন এর ট্রিপল ক্যামেরা সেটআপ। প্রাইমারি ক্যামেরা হিসেবে ব্যবহার করা হয়েছে 48 মেগাপিক্সেলের ক্যামেরা। এবং আন্ডারওয়ার এঙ্গেল ক্যামেরা 8 মেগাপিক্সেল। আর এস এস এর ক্যামেরা হিসেবে ব্যবহার করা হয়েছে 2 মেগাপিক্সেলের। এবং এ ক্যামেরা সেন্সর হিসেবে ব্যবহার করা হয়েছে সনি আইএমএক্স ক্যামেরা সেনসর। আশা করি এই ক্যামেরা নিয়ে আপনাদের কোন মন্তব্য থাকবে না । আর সেলফি ক্যামেরা হিসেবে মানে সামনের ক্যামেরা ব্যবহার করা হয়েছে 32 মেগাপিক্সেলের ক্যামেরা। যা উপরে অনেক বেশি পরিমাণে ক্যামেরা দিয়েছে শাওমি।

এবং এই মোবাইল ফোনের তিনটি কালারের থাকছে একটি নীল, কালো এবং সাদা। তবে আমার কাছে এর নীল এবং সাদা কালার টাই সবচেয়ে বেশি ভালো লেগেছে। আর এই ফোনের স্তরেজ হিসেবে থাকছে 4 জিবির সাথে 64gb ইন্টার্নাল স্টারেজ এবং ৬ জিবি র্যামের সাথে 128gb ইন্টার্নাল স্টারেজ।

সবশেষে আমি বলতেছি এই ফোনের দাম নিয়ে।এখন আপনি পাবেন সর্বনিম্ন 15 হাজার টাকা থেকে শুরু করে। আশাকরি এ ফোনটা কি না আপনার জন্য বেস্ট হবে আমি মনে করি এবং এ ফোনটা যারা যারা নেবেন তারা কিনে ফেলতে পারেন সমস্যা নেই।