• রোববার , ৫ এপ্রিল ২০২০

অ্যান্ড্রয়েড এবং অন্যান্য মোবাইল অপারেটিং সিস্টেম নিয়ে কিছু কথা!

স্টাফ রিপোর্টার:
প্রকাশিত: ২:০৮ পিএম, ২৮ নভেম্বর ১৯ , বৃহস্পতিবার

নিউজটি পড়া হয়েছে ২ বার

আশাকরি সবাই ভালই আছেন। আজকে আমি আপনাদের জন্য সুন্দর একটি আর্টিকেল লিপিবদ্ধ করেছি। সেটি হলো। অ্যান্ড্রয়েড এবং অন্যান্য মোবাইল অপারেটিং সিস্টেম নিয়ে। আমরা মূলত অ্যান্ড্রয়েড ব্যবহার করে থাকি বেশি লোকজনে। অথবা আমাদের চারপাশে অ্যান্ড্রয়েড ব্যবহারকারী অনেক বেশি পরিমানে রয়েছে। যার কারনে আমরা অ্যান্ড্রয়েড কেই খুব বেশি চিনে ফেলেছি। আজকের আর্টিকেলের মধ্যে আমি আলোচনা করব যে অ্যান্ড্রয়েড ব্যাথিত অন্য কোনো অপারেটিং সিস্টেম কেমন। সেই বিষয় নিয়ে আমার এই আজকের আর্টিকেল। আশাকরি সবাই আমার আর্টিকেল পরবেন। এবং কোন অপারেটিং সিস্টেম কেমন তা নিয়ে আমাকে মন্তব্য করবেন। এবং কোনো অপারেটিং সিস্টেম সম্পর্কে আপনাদের কিছু জানার তাহকে তাহলে আমাকে জানাতে ভুলবেন না। তো এখন আমি আর্টিকেলে চলে গেলাম। বিস্তারিত কথা হবে কমেন্ট এর মধ্যে।

আপনি জানেন যে একটা স্মার্টফোন এর ব্যবহার পরিপূর্ণ করতে অনেক সফটওয়্যারের ব্যবহার অব্যশক। একটা ফোন এর মধ্যে যদি ইচ্ছামতো সফটওয়্যার ব্যবহার করা না যায়। তাহলে সেটা কোনো পরিপূর্ণ স্মার্টফোন হয় না। তো বন্ধুরা আমরা অনেকে জারা একটু মোবাইল ফোন তৈরি সম্পর্কে জানি। তারা হয়তো জানেন যে মোবাইল বা স্মার্টফোন ব্যবহার করার জন্য প্রসেসর বা হার্ডওয়্যার ব্যবহার করার প্রয়োজন পরে। এবং তারপরে যেটা মেইন প্রয়োজন সেটা হলো অপারেটিং সিস্টেম। যেটা নিয়ে আজকে আমার মূল আর্টিকেল।

তো পৃথিবীতে বেশ কয়েকটি অপারেটিং সিস্টেম রয়েছে। তার মধ্যে সবচাইতে জনপ্রিয় ২ টি অপারেটিং সিস্টেম। সেই দুটি অপারেটিং এর নাম হলো অ্যান্ড্রয়েড ও আইওএস। আবার এই দুটি অপারেটিং সিস্টেম এর মধ্যে মার্কেট ধরে নিয়েছে অ্যান্ডয়েড। অনলাইনের বেশ কিছু প্রতিবেদন এর মাধ্যমে জানা যায়। সবচাইতে বেশি স্মার্টফোন এর মধ্যে ব্যবহার করা হয়েছে অ্যান্ড্রয়েড অপারেটিং সিস্টেম। এবং তারপরেই আইওএস এর অবস্থান। তো এই দুটি অপেরাটিং সিস্টেম এর ইতিহাস বা সম্পর্কে সবাই কম-বেশি জানেন। তাই আমি আজকে আর এই দুটি অপারেটিং সিস্টেম নিয়ে বলব না। আমি আলোচনা করব বেশ কিছু অপারেটিং সিস্টেম নিয়ে।

উইন্ডোজ অপারেটিং সিস্টেম।

আমি প্রতমেই উইন্ডোজ অপারেটিং সিস্টেম নিলে আলোচনা শুরু করলাম। কেনোনা- এক সময় এই উইন্ডোজ অপারেটিং সিস্টেম অনেক জনপ্রিয় হতে শুরু করেছিলো। এবং বেশ জনপ্রিয়তার জায়গা দখল করে নিয়েছিলো। তবে সেই সাথে গুগল এর অপারেটিং সিস্টেম অ্যান্ড্রয়েড আসার পরেই আস্তে আস্তে উইন্ডোজ মোবাইল অপারেটিং সিস্টেম এর জনপ্রিতা কমতেই থাকলো। কারন অ্যান্ড্রয়েড এর মতো সুবিধে এবং ফিচারগুলি উইন্ডোজ অপারেটিং সিস্টেম দিতে পারে নাই। যার কারনে আজ এই উইন্ডোজ মোবাইল অপারেটিং সিস্টেম এর এই অবস্থা। যদিও তারা আবার অন্যদিকে প্রায় ৮০% এর উপরে মার্কেট ধরে নিয়েছে। আসাকরি সেটি আপনারা খুব ভালোভাবে বুজতে পেরেছেন।